পুরুলিয়ার বেগুনকোদরে ভুত! সম্পূর্ণ গুজব।আতঙ্ক রটিয়েছে কিছু বহিরাগত,দাবি বিজ্ঞান মঞ্চের।

পুরুলিয়াঃ পুরুলিয়ার বেগুনকোদর স্টেশন।পাঁচ দশক ধরে সবার কাছে ভুতুড়ে স্টেশন নামেই পরিচিত।ভূত আতঙ্কে দীর্ঘদিন বন্ধও রাখা হয়েছিল স্টেশনটি।বছর দশেক ফের সেটি চালু করা হয়েছে।কিন্তু স্টেশনটি চালু হলেও ভূত আজও নাকি তাড়া করে ফিরছে যাত্রীদের।তাই এবার ভূত তাড়াতে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কারের চ্যালেঞ্জ নিয়ে মাঠে নামল পুরুলিয়া জেলা বিজ্ঞানমঞ্চ।

অপপ্রচার রুখতে শনিবার সংগঠনের জেলা শাখার তরফে স্টেশন এবং লাগোয়া বামনিয়া এলাকায় প্রচার চালানো হল।পাশাপাশি স্টেশন সহ গ্রামে পোস্টারও সাঁটানো হলো।সংগঠনের পুরুলিয়া জেলা সম্পাদক পেশায় চিকিৎসক নয়ন মুখোপাধ্যায় জানান,”যাঁরা বলছেন, ‘বেগুনকোদরে ভূত দেখা যাবে’, তাঁরা ভূত দেখাতে পারলে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে। আর না দেখাতে পারলে তাঁদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।বিষয়টি মৌখিক ভাবে পুলিশকে জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।তার কথা,বেগুনকোদর স্টেশনকে ঘিরে কিছু বহিরাগত নানা আতঙ্ক, কুসংস্কার রটাচ্ছে।ভূত বলে যে কিছু নেই, সেটা মানুষকে বোঝাতে এবং সবাইকে অভয় দিতেই আমাদের এই প্রচার।’

প্রচলিত আছে, রাতে কোনো ট্রেন বেগুনকোদর স্টেশনের আপ বা ডাউন লাইনে ঢুকলেই সামনে থেকে একটি ছায়ামূর্তি দৌড়ে আসে। আবার মাঝরাতে নাকি চাদর মুড়ি দেওয়া কোনো ব্যক্তি গোটা স্টেশন চত্বরজুড়ে ঘুরে বেড়ায়। সেইসঙ্গে নাকি শোনা যায় নানা ধরনের আর্তনাদ।ভূতের এই উপদ্রব থেকে মানুষকে রেহাই দিতে পুরুলিয়া জেলা প্রশাসন, বিজ্ঞান মঞ্চ ও রেল পুলিশ একযোগে প্রচারণায় নেমেছিল ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসের শেষদিকে।ভূতের ভয় কাটাতে স্টেশনে রাতও কেটেছিল তারা।

error: Content is protected !!